বৈশাখী সাজে পরিপূর্ণতা আনতে প্রয়োজনীয় অনুষঙ্গ

প্রাণের পহেলা বৈশাখের উৎসবে সারাদিন ঘোরাঘুরির আয়োজন আগে থেকেই চিন্তা করে রেখেছেন। বছরের অন্যান্য দিন ঘরে বসে থাকলেও প্রাণের এই উৎসবের দিনে ঘরে বসে থাকা চলবে না মোটেও। বৈশাখী মেলায় ঘোরা আর মজার মজার সব বাঙালি খাবার খেয়ে দিন পার করাই থাকে সকল তরুণ-তরুণীর উদ্দেশ্য। সে ঘোরাঘুরিতে ছোট শিশু থেকে শুরু করে প্রবীনরাও বাদ না যান। কিন্তু সেইসঙ্গে নতুন পোশাকে গ্রীষ্মের খরতাপে খুবই গুরুত্বপূর্ণ নিজেকে সুস্থ রাখার বিষয়টি। প্রতিদেনে ন্যায় এই দিনটিতে অনভ্যাসে হঠাৎ করে গরমের মাঝে ঘোরার সময় আপনাকে অবশ্যই প্রয়োজনীয় অনুষঙ্গের বিষয়ে লক্ষ্য রাখা উচিত। যেমন-

বৈশাখের দিনে পড়–ন আরামদায়ক পোশাক
বর্ষবরণের এই দিনে সুতি হলেও শাড়িতে বা থ্রি-পিসে সবাই স্বস্তি পায় না। অন্যান্য দিনে যে ধরণের পোশাকে আপনি অভ্যস্ত বৈশাখী সাজেও তেমন স্টাইলের পোশাক পরতে পারেন। বর্ষবরণের উৎসবকে আরও বেশি আনন্দের করতে স্বস্তির পোশাকটি বেছে নেয়া জরুরি।

ব্যাগ
বর্তমানে বড় ব্যাগের ফ্যাশন চলছে। ব্যাগ নির্বাচন করুন শাড়ির সঙ্গে ম্যাচিং করে। কালো, লাল, চকলেট যেকোনো রঙের ব্যাগ বেছে নিতে পারেন। বৈশাখী শাড়ির সঙ্গে যেকোনো ব্যাগ কিন্তু মানিয়ে যায়। গ্রীষ্মের খরতাপের এই দিনে যারা দিনভর বাইরে ঘোরার পরিকল্পনা করছেন তারা অবশ্যই কিছু প্রয়োজনীয় জিনিস ব্যাগে রাখতে পারেন। যেমন- ছোট ছাতা, পানির বোতল, হাল্কা মেকআপ, রুমাল বা টিস্যু, মোবাইল, ছোট আয়না ইত্যাদি। সইে সঙ্গে ঘোরাঘুরির ফাঁকে নিজের সাজটা ঠিক আছে কিনা তাও দেখে নিতে পারেন। তাহলে দিনশেষেও আপনি থাকবেন সাজ-পোশাকে অনন্য।

জুতা
নিশ্চই বৈশাখী মেলায় সারাদিন রিকশায় ঘুরাঘুরি করবেন না, বহু পথ চলতে হবে পায়ে হেঁটেই। তাই বেছে নিতে পারেন আরামদায়ক সুন্দর একজোড়া জুতা। সারাদিন অনেকখন হাটাহাটিতে আপনার পায়ে ফোসকাও পড়বে না আবার পায়ে ব্যথাও হবে না। এক্ষেত্রে বেছে নিতে পারেন একদমই ফ্লাট জুতা। আপনার দেহের ব্যালান্স ঠিক রেখে পায়ের যতœ নিশ্চিত করতে ফ্লাট জুতার তুলনা নেই।

সঙ্গে রাখুন স্যালাইন পানি
গরমের এই দিনে রোদের মধ্যে সারাদিন যখন ঘুরবেন তখন ঘাম ঝরবেই। তাই বলে অতিরিক্ত ঘেমে দুর্বল হয়ে যাওয়া উচিৎ হবে না। দিনের সবটুকু ঘোরা আপনার জন্য আনন্দময় করতে চাঙ্গা থাকা জরুরি। সেজন্য ব্যাগের মধ্যে রাখা বোতলের পানিতে একটি স্যালাইন গুলে নিতে পারেন। আবার সেইসঙ্গে রাখতে পারেন ডাবের পানিও। মাঝে মাঝে তৃষ্ণা মেটাতে দুয়েক চুমুক আপনাকে রাখবে একদমই সতেজ।

স্বস্তিদায়ক গহনা
পহেলা বৈশাখের প্রভাতী অনুষ্ঠানে যোগ দিতে শাড়ির সঙ্গে কিংবা থ্রি-পিসের সঙ্গে ম্যাচিং করে জড়োয়া গহনা পরে বের হয়েছেন। সারাদিন বাইরে কাটাবেন এমনই পরিকল্পনা আছে। গলা ভর্তি মালা বা কান ঝুলে পড়া দুলের ভার একটু সময় পরেই আপনার মধ্যে অস্বস্তির জন্ম দিতে পারে। তাই পোশাকের সঙ্গে ম্যাচিং করে আরামদায়ক বা হালকা গহনা বেছে নিতে পারেন বর্ষবরণের এই দিনটিতে।

Updated: May 29, 2015 — 1:41 pm
bangladeshi women's lifestyle © 2015-2016, ই-মেইলঃ bdnari.com@gmail.com Serverdokan TEAM