মাস্টারবেশনের ফলে শারীরিক যেসব প্রভাব পরে

man

রুষদেও মাস্টাবেশন বা হস্তমৈথুন করার কিছু ভালো আবার কিছু খারাপ দিক রয়েছে। তবে ইসলামের দিক দিয়ে অনেকেই বলে এটি করা পাপ। তবে এর ফলে পুরুষের শারীরিক দিক দিৈিয় অনেক প্রভাব বিস্তার করে। এখানে হস্তমৈথুন সংক্রান্ত কিছু ধারনা দেয়া হলো-

–    হস্তমৈথুন যৌন উত্তেজনা কমায় না।
–    হস্তমৈথুনে বীর্যপাত হয় সামান্য।
–    হস্তমৈথুনে লিঙ্গেও দৃঢ়তা বাড়ে ইত্যাদি।

পাশাপাশি বহু পুরুষের যৌনতা এবং হস্তমৈথুন সম্পর্কে কিছু ভ্রান্ত ধারণা আছে এবং তারা হস্তমৈথুনকে পাপ মনে করেন। সাধারণত এই বিশ্বাসগুলো সৃষ্টি হয় বিভিন্ন কারণে। যেমন-

–    বৃদ্ধ বয়সে ধর্মীয় বিশ্বাস।
–    ডাক্তারী ভ্রান্ত কৌশল অবলম্বন।
–    পিতা মাতার কঠোর শাসন।
–    সব নারীকেই পবিত্র মনে করা।
–    ডাক্তারদেও ভুল ব্যাখ্যা।
–    কুসংস্কার ইত্যাদি।

এর পাশাপাশি একজন হস্তমৈথুনকারী আরো বিভিন্ন  বিষয় চিন্তা কওে দুশ্চিন্তাগ্রস্ত হয়ে পড়ে অন্যান্য ক্ষেত্রে তার চিন্তা ভাবনা ও বিশ^াসগুলো হলো-

–    এটি শারীরিক ও মানসিক অসুস্থতার সৃষ্টি করে।
–    এটি চোখের দৃষ্টি কমিয়ে দেয়।
–    এক ফোঁটা বীর্যে চল্লিশ ফোঁটা রক্ত থাকে।
–    অতিরিক্ত হস্তমৈথুন পুরুষকে পুরুষত্বহীন কওে তোলে।
–    হস্তমৈথুন লিঙ্গেও লায়ু এবং রক্ত চলাচলের কোষকে দুর্বল কওে তলে।
–    এটি পিঠ ব্যথার সৃষ্টি করে।
–    এটি সামাজিকতার চোখে নিন্দনীয়।
–    এটি একজন পুরুষকে সমকামী কওে তুলতে পারে।

উপরের সবগুলোই চিন্তা ভ্রান্ত এবং বাস্তবতা বহির্ভূত। হস্তমৈথুন কোনো কোনো সময় মানসিক চাপ সৃষ্টি কওে ঠিকই কিন্তু এর ফলে দৈহিক এবং মানসিক কোনো পরিবর্তন হয় না। হস্তমৈথুনের ব্যাপাওে কিনসে প্রকাশিত আসল তথ্য হলো-

–    পরিমিত মাত্রায় হস্তমৈথুন ভালো।
–    ২৫ বছরের পর দৈনন্দিন হস্তমৈথুন ক্ষতিকর নয়।
–    এটি একটি স্বাভাবিক শারীরিক প্রক্রিয়া।
–    এটি আত্মবিশ্বাস বাড়ায়।
–    মাত্রা অতিরিক্ত হস্তমৈথুন (যেমন দিনে একাদিক বার) খারাপ।
–    এটি যৌন অনুভতি চাঙ্গা করে।
–    এটি যৌন মিলনের কৌশল বাড়াতে সাহায্য করে।
–    এটি আত্ম তৃপ্তিদায়ক যৌন অভ্যাস।

Updated: July 15, 2015 — 2:22 pm
bangladeshi women's lifestyle © 2015-2016, ই-মেইলঃ bdnari.com@gmail.com Serverdokan TEAM