আসুন চুল বাঁধি মনের মতো

Untitled-1 copy

চুল মেয়েদের সৌন্দর্য্যের মূল। কথায় বলে, যে রাঁধে সে ভালো চুল বাঁধে। কিন্তু চুল বাঁলেই যে তাকে রাঁধতে হবে তার এমন বাধ্যবাধকতা নেই। তবে রান্না ঘরে ঢোকার আগে অবশ্যই নিজের চুলটি বেঁধে নিন। সে চুল ছোট হোক আর বড় হোক না কেন। কারণ চুল অত্যন্ত দাহ্য পদার্থ। নিমিষের মধ্যে চুলের মাধ্যমে চুলার আগুন আপনার সারা শরীরে ছড়িয়ে পড়তে পারে। অনেক দুর্ঘটনা ঘটেছে এই পন্থায়। সুতরাং আগে থেকে সাবধান থাকতে ক্ষতি কী। আসুন আমরা জেনে নেই চুল বাঁধার কয়েকটি সাধারন উপায়।

চুল বেশি বা কম এ নিয়ে দুশ্চিন্তার অন্ত নেই মেয়েদের। তবে চুল ছোট হোক কিংবা বড় ফ্যাশন সচেতন মেয়েরা এখন বিভিন্নভাবে চুলের কাট দিয়েই কেশসজ্জার কাজটি সেরে ফেলে। ফলে পুরোনো সেই চুল বাঁধার চিরাচরিত প্রথাগুলো যেন উঠে যেতে বসেছে। তবুও এখনও চুল নিয়ে খোঁপা বাঁধার নিয়ম চালু রয়েছে বিয়ের অনুষ্ঠানে। কিংবা কণে সাজাবার সময়। এখানে কয়েকটি চুল সাজাবার খোঁপা বিষয় সম্পর্কে জানানো হলো। পাঠিকাদের পছন্দ হলে বাঁধতে পানের এই ধরনের খোঁপা। বিশেষ করে বিয়ে বাড়ি বা এই ধরনের কোনো আসরে চুল বেধে গেলে নতুনত্ব আসবে আপনার চেহারায়।

* যাদের চুল পাতলা তারা এই ধরনের কেশসজ্জা করতে পারেন:- প্রথমে চুলটা ভালো করে আঁচড়ে নিন। এরপর সামনের দিকে ব্যাক কম্বিং করে সামান্য ফুলিয়ে নিন। মাথার মাঝে পিন দিয়ে আটকে দিন। ঘাড়ের কিছুটা ওপর থেকে কিছুটা চুল ছেড়ে রাখুন। বাকি চুল তিন ভাগ করুন। এবার একধারের ভাগ নিয়ে রোল করে কার্ল করুন। নরু ক্লিপ দিয়ে কার্লটি আটকে নিন। এভাবে তিনটি কার্ল করতে হবে। দুধারে দুটি ও একটি নিচে।  ঘাড়ের কাছে ছাড়া চুলে হেয়ার ¯েপ্র দিয়ে পরিস্কার করে আঁচড়ে আঙুলে জড়িয়ে রোল করে নিন। নিচে ঝোলা কার্লের গুচ্ছ কানের পাশে অল্প নিচের দিকে সরু ক্লিপ দিয়ে আটকে নিন।

indian-wedding-hairstyles-for-long-hair-long-hair-wedding-styles-indian-wedding-hairstyles-for-long-hair

* যাদের চুল খুব পাতলা তারা নিচের কেশ সজ্জাটি করতে পারেন:- সামনের পাতলা চুল গুলোকে অল্প ব্যাকব্রাশ করে একদিকে টেনে মাথার উপরে সরু ক্লিপ দিয়ে আটকে দিন। পিছনের চুল সমান দু’ভাগে ভাগ করে পরিস্কার করে আঁচরে নিন। বাম দিকের একভাগ চুল হাত দিয়ে ডান দিকে রোল করে নিন। ওপর থেকে নীচ অবধি পিন লাগিয়ে রোলটিকে শক্ত করুন। দুটি রোল এর মাঝে কাঁটা দিয়ে রোল দুটিকে জুড়ে দিন। দুদিকে দুগাছি চুল কার্লার দিয়ে অথবা হাত দিয়ে পাকিয়ে ছেড়ে দিন।

* মাঝারি সাইজের চুল যাদের তারা পরবর্তী বর্নিত কেশসজ্জা করতে পারেন:- প্রথমে ভালোভাবে চুল আঁচড়ে জট ছাড়িয়ে নিয়ে নমনীয় করুন। এরপর লম্বা করে সোজা সিথি করুন টেল কম্ব দিয়ে। চুল পেতে আঁচড়ে কানের কাছে ক্লিপ দিয়ে আটকে নিন। রাবার ব্যান্ড দিয়ে বাকি চুল ঘাড়ের কাছে নিচু করে পনিটেল করে বাধুন। চুল দুগাছিতে ভাগ করে নিয়ে জড়িয়ে হাত খোঁপা করুন। তারপর সাবধানে উপরের কয়েক গাছি চুল নামিয়ে নিয়ে পুরো খোঁপা ঢেকে চুল নিচে ক্লিপ দিয়ে আটকে নিন।

* চুলের সাইজ যাদের লম্বা তারা পরবর্তী বর্ণিত কেশসজ্জা করতে পারেন:- চুল ভালোভাবে আচঁড়ে জট ছাড়িয়ে নিন। তারপর মাঝখানে সিঁথি করে নিন। সামনের দিক থেকে দুপাশে সমান দুভাগ চুল আলাদা করে নিন। এই দুভাগ চুলে বিনুনি করুন। বিনুনি করার সময়  একগাছি করে চুল আলগা ছাড়–ন। এবার দুধারের বিনুনি চুলের মাঝে এলে ঐ দুটি বিনুনি সঙ্গে মাঝখান থেকে আরও কিছু চুল নিয়ে বিনুনি করতে থাকুন। মাঝের চুলে চারগাছি বিনুনি করতে হবে। বিনুনির শেষে রাবার ব্যান্ড দিয়ে আটকে দিন। রাবার ব্যান্ডটি ঢাকাতে কয়েকটি নকল মক্তো বসানো কাঁটা ব্যানপটিকে ঘিরে গুঁজে দিতে পারলে আরও ভালো হয়।

* চুলের সাইজ যাদের ঘন তারা পরবর্তী বর্নিত কেশসজ্জা করতে পারেন :- সামনে ছোট সিঁধি করে অল্প চুল অর্থাৎ সিঁধি অবধি চুল টেনে কানের পাশে ক্লিপ করে নিন। সিঁধি যেখানে শেষ হয়েছে সেখানকার কিছুটা চুল ব্যাক কোম্ব করে ফুলিয়ে বুফো করে নিন। পিছনের পুরো চুলটা নিয়ে আঁচড়ে উপরে তুলে টুইস্ট করে উপরে পিন দিয়ে শক্ত করে আটকে দিন। নিচের চুলটা ঘুরিয়ে বামদিকে ভেতরে ঢুকিয়ে এনে কাঁটা দিয়ে আটকে দিন। সরু দাঁতের চিরুনি দিয়ে কোথাও চুল এলোমেলো হলে পরিচ্ছন্ন করে সামান্য হেয়ার ¯েপ্র করে দিন।
মেয়েদের চুল বাঁধা

Updated: July 30, 2015 — 5:03 pm
bangladeshi women's lifestyle © 2015-2016, ই-মেইলঃ bdnari.com@gmail.com Serverdokan TEAM