মেয়েদের সৌন্দর্য্য সহায়ক উপকরণ

tumblr_ns2ngnIBdg1tokksoo10_540

* নিজেকে নিখুঁতভাবে উপস্থাপনে প্রসাধনসামগ্রীর প্রয়োজনীয়তা কেউ অস্বীকার করতে পারবেন না। অনেকেই উপকরণগুলো এড়িয়ে চলতে চেষ্টা করেন। কিন্তু বাস্তবিকতার দিক থেকে দেখা যায় আসলেই এগুলোকে এড়িয়ে চলা যায় না। কোনো না কোনো সময় মেকআপ উপকরণগুলো ব্যবহার করতেই হয়।

অনেকে বলেন মেকআপ সামগ্রী ব্যবহারে ত্বকের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। আসলে দেখুন তো, আমরা প্রতিদিন শারীরিক ক্ষতিকারক কোন বস্তকে উপেক্ষা করতে পারছি। পারছি না তাই না? তাহলে এগুলোকে ভয় করে লাভ কী। তাছাড়া মেকআপ উপকরণের মধ্যে কোম্পানীর উপকরণ অনায়াসে ব্যবহার করতে পারেন। যেগুলোতে অন্তত শারীরিক ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কম।

যারা রঙ ঝলমলে মিডিয়াতে কাজ করেন তাদের প্রতিনিয়ত মেকআপের উপরই নির্ভর করে থাকতে হয়। মেকআপ ছাড়া ক্যামেরার সামনে আসা কোন মতেই সম্ভব না। সবচেয়ে বড় কথা মেকআপের মাধ্যমেই ৫০ বছরের বুড়িকেও ২৫ বছরের তরুণীতে রূপান্তর করা যায়। তাই বলে তাদের মধ্যেও যে মেকআপ ভীতি নেই তা বলছি না। তবে তারা এমন ধরনের মেকআপ ব্যবহার করেন যেগুলো দিয়ে এই ধরনের ক্ষতির আশংকা কম।

অনেক মিডিয়া কর্মী ক্যামেরার সামনে আসার আগে নিজেদের মেকআপ বক্স ব্যবহার করেন। কারন নিজের মুখের ত্বকে ব্যবহারের জন্য নিজের ব্র্যান্ডের মেকআপ ব্যবহারের প্রতি গুরুত্ব বেশি। ফলে তাদের ত্বক দীর্ঘদিন ধরেই ভালো থাকে। তাছাড়া মেকআপ নেয়াতে যেসব পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয়ার সামান্যতম সম্ভাবনা থাকে সেগুলো দূর করার জন্য কিছূ নিয়মকাননুও তারা মেনে চলে।

পোশাক এবং সৌন্দর্য বিকাশ :

পোশাক আমাদের সৌন্দর্য বিকাশে সহায়তা করে। সত্যি কথা বলতে কী আপনি যত সুন্দরীই হোন না কেন আপনার পরণের পোশাক যদি ভালো বা উপযুক্ত না হয় তাহলে নিঃসন্দেহে সঠিক মূল্যায়ন হবে না আপনার সৌন্দর্যের। তবে আপনার পোশাক হতে হবে চলতি সময়ের সাথে খাপ খাওয়ানো ফ্যাশন অনুসরণ করে। তবে অবশ্যই তা সভ্যতার অন্তরায় যেন না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। এমন পোশাক নিশ্চয় পরবেন না যেটা পরলে আপনার পোশাক অপরের চোখে সমালোচিত হতে পারে। সভ্যতার সীমা অতিক্রম করা পোশাক কখনই আপনার ব্যাক্তিত্ব বিকাশে সহায়ক হতে পারে না।

আমাদের দেশের বিয়ের পোশাক মানেই জামদানী, কাতান, বেনারসী আর একগাদা গহনা দিয়ে মোড়ানো একটি পুতুল বিশেষ। নিচের চিত্র দেখুন, সেখানে আমাদের দেশের কণেদের অবস্থা দেখানো হয়েছে।
dulhan2
এরকম বিয়ের পোশাক পরে জবড়জং হয়ে হাসিমুখে মেয়েটিকে বসে থাকতে হয় ঘন্টার পর ঘন্টা। তবে ইদানিং আধুনিক অভিভাবকরা অন্তত লেহেংগা বা এই ধরনের পোশাক ব্যবহার করে থাকেন বিয়ের পোশাক হিসেবে যা এই ভারী শাড়ি গহনার চেয়ে অনেক ভালো।

Updated: October 29, 2015 — 2:43 pm
bangladeshi women's lifestyle © 2015-2016, ই-মেইলঃ bdnari.com@gmail.com Serverdokan TEAM