এই গরমে ঘামের দুর্গন্ধ এড়াতে করণীয়!

bdnari22564শীত চলে গিয়ে আসছে গরম। এই গরমের মধ্যে সারাদিন বাহিরে বাহিরে কাজ করে আমাদের প্রায় সকলেরই শরীরে ঘামের উৎপন্ন হয়ে থাকে। কারও বেশি আবার কারও কম। আর ঘামের কারণে শরীরে সৃষ্টি হয় দুর্গন্ধের যা খুবই অস্বস্তিকর এবং বিব্রতকর। কিন্তু ঘাম শরীরের জন্য উপকারী একটি জিনিস। কারণ ঘামের মাধ্যমে শরীর থেকে ক্ষতিকারক পদার্থগুলো বের হয়ে যায়। তাই ঘাম বন্ধ করতে চাওয়া মোটেই যুক্তিযুক্ত নয়। অতিরিক্ত ঘামানোর কারণে শরীরে ব্যাকটেরিয়া বংশবিস্তার করে ফলে শরীরে দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়। গরমে ঘামনোর কারণে দুর্গন্ধটা হওয়া স্বাভাবিক তবে আপনি যদি কিছু নিয়ম মেনে চলেন তাহলে কিছুটা হলেও এই অস্বস্তিকর অবস্থা থেকে রেহাই পেতে পারেন।

# যাদের ঘামের কারণে শরীরে বেশি দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয় তাদের প্রথমত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া উচিত। ডাক্তার পরীক্ষা করে দেখবেন দুর্গন্ধ হওয়ার জন্য কোনো শারীরিক সমস্যা কাজ করছে কিনা ।

# যারা মাছ , মাংস , ডিম , দুধ ইত্যাদি আমিষজাতীয় খাবার বেশি খায় তাদের ঘামের দুর্গন্ধ সাধারণত বেশি হয়। তাই প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় ফল ও সবজির পরিমাণ বেশি রাখুন ।

# গরমে সুতি কাপড় পড়ার চেষ্টা করুন। এটি দেহকে দুর্গন্ধমুক্ত রাখতে সাহায্য করে। গরমের সময় সিনথেটিক কাপড় এড়িয়ে চলুন ।

# কাপড় চোপড় বিশেষ করে অন্তর্বাস নিয়মিত বদলাতে হবে এবং ধুয়ে পড়তে হবে।

# নিয়মিত পরিচ্ছন্নতার দিকে নজর দিন । অবাঞ্চিত লোম নিয়মিত পরিষ্কার করুন । এতে যেমন ঘাম নির্গমনের সময়কার অস্বস্তি দূর হবে তেমনি ব্যাকটেরিয়া জন্মাতেও বাধা দেবে ।

# প্রতিদিন গোসল করতে হবে । গোসলের পানিতে গোলাপজল ব্যবহার করুন । এতে ঘামের পরিমাণ কমবে ।

# মানসিক চাপ ঘর্মগ্রন্থির স্বাভাবিক কার্যক্ষমতা ব্যাহত করে। তাই নিজেকে দুশ্চিন্তামুক্ত রাখার চেষ্টা করতে হবে ।

# পটাশিয়াম অ্যালাম নামের এক ধরনের লবণ থেকে তৈরি মিনারেল ডিওডোরেন্ট পাওয়া যায় , যা পানিতে ভিজিয়ে বগলে ডলে লাগালে ভালো কাজ দেয় ।

# প্রচুর পরিমাণে পানি পান করতে হবে । পানি আপনাকে দেহের ভেতর থেকে পরিষ্কার করবে । এর ফলে ত্বকের ভেতরের ও বাইরের ব্যাকটেরিয়াগুলো দূর হয়ে যায় ।

# বেকিং সোডা বহু বছর থেকেই বাজে গন্ধ দূর করতে ব্যবহার হয়ে আসছে । গোসলের পর সামান্য বেকিং সোডা হাতে নিয়ে বগলে লাগালে দুর্গন্ধ আয়ত্বে রাখা যাবে ।

# অনেকে ঘাম কমাতে ট্যালকম পাউডার ব্যবহার করে থাকে । এসব পাউডার ঘাম শুষে নিয়ে ত্বকে শুষ্কতা প্রদান করে । তবে এসব পাউডার ব্যবহার করার আগে দেখতে হবে তার চঐ লেভেল ঠিক আছে কিনা ।

# বাজারে প্রচলিত ঘামনিরোধক স্প্রে বা রোল অন ব্যবহারে সতর্ক হতে হবে । কারণ এসবে নানা ধরনের বিষাক্ত কেমিক্যাল এবং ত্বকের জন্য ক্ষতিকর অ্যালুমিনিয়াম থাকে ।

# কোনো বডি স্প্রে বা ডিওডোরেন্ট ব্যবহারের পর যদি অ্যালার্জি , চুলকানি বা ফুসকুড়ি ওঠে তাহলে তা সাথে সাথে ব্যবহার করা বন্ধ করে দিতে হবে ।

Updated: February 25, 2016 — 2:35 pm
bangladeshi women's lifestyle © 2015-2016, ই-মেইলঃ bdnari.com@gmail.com Serverdokan TEAM