ছেলেদের স্মার্টনেস বাড়াতে মেনে চলুন এইসব নিয়ম!

bdnari2053ছেলেদেরও যে রূপচর্চা প্রয়োজন আছে এ কথাটি অনেক ছেলেই বিশ্বাস করেন না। কিন্তু সুন্দর থাকা, পরিষকার-পরিচ্ছন্ন থাকা কিংবা অন্যের চোখে আকর্ষণীয় হয়ে ওঠার মধ্যে ছেলেমেয়ে কারো কোনো পার্থক্য নেই। শুধু সাজগোজের ব্যাপার নয়, এর মাধ্যমে আপনি হয়ে উঠবেন পরিষকার-পরিচ্ছন্ন ফ্যাশন সচেতন এবং ব্যক্তিত্বসম্পন্ন। কাজেই ছেলেদেরও সাজ আছে।

* ত্বকের যত্ন : বেশিরভাগ ছেলেই মুখের ত্বকের ব্যাপারে উদাসীন থাকে। যার ফলে মুখে ব্রণের সৃষ্টি হয়। বিভিন্ন রকমের দাগ পড়ে কিংবা খুব তাড়াতাড়ি বয়সের ছাপ পড়ে। ছেলেদের ত্বকের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হলো পানি। যতবার হাত-মুখ ধোবেন ততবার পানির ঝাপটা দিয়ে ভালোভাবে মুখ পরিষকার করে নিন। যাদের ত্বক তৈলাক্ত তারা দিনের হাজারো ব্যস্ততার ভিড়েও এই কর্মটি করার চেষ্টা করুন। যাদের মুখে ব্রণ আছে তারা মুখ ধোয়ার ক্ষেত্রে সাবানের পরিবর্তে ফেস ওয়াশ ব্যবহার করুন। ব্রণের হাত থেকে রেহাই পেতে হলে প্রতিদিন ঘুমানোর আগে এক চামচ চন্দন বাটার সঙ্গে আধা চামচ মধু দিয়ে মিশ্রণ তৈরি করে মুখে লাগান। আধা ঘণ্টা পর মুখ ধুয়ে পরিষকার করে নিন। এ ছাড়া মাসে অন্তত দুবার ফেসিয়াল করুন। আজকাল অনেক সেলুনেই ছেলেদের ফেসিয়াল করে থাকে। এর পাশাপাশি শীতে নিয়মিত বডি লোশন ব্যবহার করতে পারেন।

* নখের জন্য কিছু করুন : সপ্তাহে দু-একবার হাত-পায়ের নখ কাটলাম এবং একটা কাজ ফুরাল। নখ নিয়ে ছেলেদের এমন ধভরণা বহুল প্রচলিত। কিন্তু শুনলে অবাক হবেন, নখ দিয়ে মানুষ চেনা যায়। কামসঝত্র বইটিতে বাৎসায়ন লিখেছেন- ‘সেক্স অনুযায়ী নারী-পুরুষের নখ তিন প্রকার। কামাবেগ যাদের সবচেয়ে বেশি তাদের বাম হাতের নখ হবে নবীনাগ্রসম্পন্ন ও করাতের দাঁতের মতো দুই-তিন শিখরবিশিষ্ট। কিছুটা প্রমুষ্টাগ্র ও শস্যের মতো সূক্ষাগ্র হবে মাঝারি কামবিদের নখ। আর মন্দবেগ কামবিদের নখের আকার হবে অর্ধচন্দ্রের মতো।’ তবে কামসূত্র মতে সমান, উজ্জ্বল, বর্ধনশীল, কোমল, স্নিগ্ধ দর্শন এবং যে নখ থেকে চটা উঠে না সেটাই হচ্ছে প্রকৃত অর্থে সেক্সুয়াল নখ। কাজেই ছেলেরাও নখের যতœ নিন। সুন্দর শেইপ করে ধীরে ধীরে নখ কাটুন তারপর কাটারের এসরি বোর্ড দিয়ে নখগুলো ঘষে নিন বিশেষ কায়দায়।

* চুল-দাড়ি বন্দনা : যারা ক্যাজুয়ালি চুল কাটেন তারা মাসে দুবার চুল কেটে শেইপ ঠিক রাখুন। আর যারা চুল ছোট রাখেন তারা প্রতিদিন চুলে জেল লাগিয়ে চুলগুলোকে গুছিয়ে রাখুন। আর আপনি যদি চুল লম্বা রাখতে চান তবে একটু ভেবেচিন্তে নিন। কারণ লম্বা চুলে সবাইকে মানায় না। আবার যাদের চেহারার গঠন লম্বাটে কিংবা পন আকৃতির তাদের চুল লম্বা রাখলে ভালো দেখায়। যাদের গায়ের রঙ কালো তাদের লম্বা চুল মোটেও ভালো লাগে না। যাদের লম্বা চুল তারা সব সময়ে পোশাকের সঙ্গে মানানসই গার্ডার দিয়ে চুল বেঁধে রাখুন। আর মাঝেমধ্যে চুলের আগা ছেঁটে দিন। সপ্তাহে অন্তত দুদিন শ্যাম্পু করে চুল পরিষকার রাখুন। যারা ক্লিন শেভে অভ্যস্ত তারা প্রতিদিন সেভ করে আফটার সেভ লোশন দিডে মুখটা ম্যাসাজ করে নিন। যারা দাড়ি রাখেন তারা সপ্তাহে নিয়ম করে দাড়িগুলো সাইজ করে নিন এবং পরিষকার-পরিচ্ছন্ন রাখুন।

* পোশাক-আশাক ও ফিটনেস : যারা নিয়মিত স্যুট পরেন তারা স্যুটের রঙের ওপর নির্ভর করে শার্ট পরবেন। স্যুট গাঢ় রঙের হলে শার্ট পরবেন হাল্কা রঙের। গরমের সময় স্যুট পরতে না চাইলে শর্ট শার্ট, ফতুয়া এবং জিন্স পরতে পারেন। ছেলেদের ফ্যাশনে সমসময় জুতা আর বেল্টের রঙ মানিয়ে পরতে হয়। আর পোশাক-আশাকের সঙ্গে নিয়মিত পারফিউম ব্যবহার করুন। পারফিউমের ক্ষেত্রে একটা ব্রান্ড ব্যবহারের চেষ্টা করুন। আপনার সব সাজগোজ ও স্মার্টনেস মাটি হয়ে যেতে পারে যদি আপনার বেমানান ভুঁড়ি থাকে। তাই শরীরের ফিটনেস রক্ষায় ব্যায়ামের পাশাপাশি ডায়েট কন্ট্রোলটাও জরুরি। ডায়েটের ক্ষেত্রে চর্বিযুক্ত খাবার কম খান এবং জিমে যাওয়ার অভ্যাস করুন। এরপর দেখুন আপনার স্মার্টনেস আপনাকে ব্যক্তিত্বসম্পন্ন করে গড়ে তুলবে।

Updated: March 17, 2016 — 2:59 pm
bangladeshi women's lifestyle © 2015-2016, ই-মেইলঃ bdnari.com@gmail.com Serverdokan TEAM