দাম্পত্যজীবন উপভোগ করতে মেনে চলুন বিষয়গুলো!

bdnari63214896দাম্পত্যকে মধুর রাখতে গেলে পরস্পরের খেয়াল রাখতে হবে, অনুভূতির কদর করতে হবে, ক্ষমা করতে জানতে হবে ইত্যাদি পরামর্শ আমরা সব সময়েই শুনি।  কিন্তু অধিকাংশ দাম্পত্যে  সম্পর্কের ক্ষেত্রেই দেখা যায়  কিছুদিন পর থেকেই জীবনটা একঘেয়ে লাগতে শুরু করে৷ এরপর খুব স্বাভাবিক কারণেই শুরু হয় খিটখিট আর অশান্তি। মনোবিদরা মনে করেন নিম্নলিখিত এই বিষয়গুলো মেনে চললে স্বামী-স্ত্রী উভয়ই দাম্পত্য ব্যাপারটাকে উপভোগ করবেন।

* সমান সমান হওয়া : আমাদের সমাজে দেখা যায় স্বামীরা দাম্পত্যে বেশী গুরুত্ব পেয়ে থাকেন, যা একেবারেই অনুচিত। মনে রাখবেন, দাম্পত্যে কেউ বড় বা কেউ ছোট না, বরং দুজনেই সমান সমান। এই সাম্য অর্জন করতে না পারলে আসলে প্রকৃত ভালোবাসা ও সুখ আসে না দাম্পত্যে। স্বামী ও স্ত্রী পরস্পরকে সমান চোখে দেখবেন, সংসারের সকল বিষয়ে দুজনের ইচ্ছা ও মতামত সমান গুরুত্ব পাবে, তাহলে হয়ে উঠবে দাম্পত্য মধুর।

* নিজের একটা আলাদা ভুবন : দাম্পত্য মানে সবকিছুই কেবল জীবন সঙ্গীকে ঘিরে হওয়া নয়৷ এতে জীবনসঙ্গী যেমন অতিরিক্ত চাপ ও দমবন্ধ ভাবের শিকার হন, তেমনই আপনার জীবনটাও হয়ে পড়ে এক পেশে ও পর নির্ভরশীল। দাম্পত্যকে আনন্দময় রাখতেই বরং বাইরের পৃথিবীর সাথে নিজের যোগাযোগ বজায় রাখুন। নিজের বন্ধু মহলকে ত্যাগ করবেন না, পরিবারকে পর্যাপ্ত সময় দিন, সময় দিন নিজের শখ ও ইচ্ছাকে।

* পরস্পরকে ভয় পাবেন না : স্বামী বা স্ত্রীকে ভয় পাবেন না ভুলেও। মনে রাখবেন, পৃথিবীতে তিনিই আপনার সবচাইতে আপন মানুষদের একজন। ভয় পেলেই আর সম্পর্কে মধুরতা থাকে না।

* আর্থিকভাবে নির্ভরশীল হওয়া : আজকাল অনেক স্বামীকেই দেখা যায় স্ত্রীর উপার্জনের ওপরে নির্ভরশীল। আর স্ত্রীরা স্বামীর উপার্জনে নির্ভরশীল তো যুগ যুগান্তর ধরে। দুটির কোনটিই দাম্পত্যের স্বাস্থ্যের জন্য ভালো নয়। কাজ যেমনই হোক না কেন, নিজে অবশ্যই কিছু করুন। অন্তত নিজের হাত খরচটা যেন জীবনসঙ্গীর কাছে চাইতে না হয় বা নিজের উপার্জনে সঙ্গীকে উপহার দেবার সামর্থ্য যেন থাকে আপনার।

* নিজের জন্য সময় বের করা : বিবাহিত জীবনে হাজারোও ডিউটি পালন করতে হয়৷  কিন্তু  নিজের জন্যও কিছু সময় বরাদ্দ রাখতে হয়। সপ্তাহে অন্তত একবার হলেও নিজেকে একটু বিরতি দিন। আরাম করুন, নিজের শরীর ও মনকেও আরাম দিন, তাই করুন যাতে আপনি রিল্যাক্সড অনুভব করেন।

[ বিঃ দ্রঃ প্রতিদিন মজার মজার রান্নাকরার অসাধারন সব রেসিপি এবং রুপ লাবণ্য টিপস আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে আমাদের পেইজে লাইক দিন!

আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিতে এইখানে ক্লিক করুন

Updated: April 19, 2016 — 8:04 am
bangladeshi women's lifestyle © 2015-2016, ই-মেইলঃ bdnari.com@gmail.com Serverdokan TEAM