গরমে ঘামাচি থেকে বাচতে রইল ঘরোয়া কৌশল!

bw00001210121গরমে ত্বকের যে সমস্যাটায় কম বেশি সবাইকে ভুগতে হয়, তা হল ঘামাচি। ঘাড়, পিঠ, গলা, হাত, মুখ সহ শরীরের নানা স্থানে লাল ছোট ছোট ঘামাচি দেখা দেয়। অস্বস্তিকর এই ঘামাচি অনেক সময় চুলকানির উদ্ভব করে যা থেকে শরীরের নানা স্থানে লালচে ভাব দেখা দিয়ে থাকে। অসহ্যকর এই ঘামচি চিরতরে দূর করুন সহজ কিছু ঘরোয়া উপায়ে।

* চন্দনের গুঁড়ো : সমপরিমাণে চন্দনের গুঁড়ো এবং গোলাপ জল মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। এবার এই পেস্টটি ঘামাচির স্থানে লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি দিনে দুইবার ব্যবহার করুন। এছাড়া দুই টেবিল চামচ চন্দনের গুঁড়ো এবং ধনিয়া গুঁড়োর সাথে গোলাপ জল মিশিয়ে নিন। ঘামাচির উপরে এই পেস্টটি লাগিয়ে দিন। শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে দিন। এটি সপ্তাহে দুইবার ব্যবহার করুন। চন্দন ঘামাচির দূর করে শরীরে একটি ঠান্ডা ভাব দেয়।

* ওটমিল : ঘামচির র‌্যাশ দূর করতে বেশ জনপ্রিয় প্রাচীন একটি উপায় হল ওটমিল। এর অ্যান্টি ইরিটেটিং, অ্যান্টি ইনফ্লামেনটরি উপাদান ত্বকে আরাম দিয়ে থাকে। ঠান্ডা পানির মধ্যে এক কাপ ওটমিলের গুঁড়ো ভাল করে মিশিয়ে নিন। এইবার এই পানিতে ২০-৩০ মিনিট ঘামাচির স্থানে ডুবিয়ে রাখুন। এটি সপ্তাহে দুইবার করুন।

* বেসন : বেসন এবং পানি মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্টটি ঘামাচির স্থানে লাগিয়ে নিন। ১৫ মিনিট পর শুকিয়ে গেলে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি চুলকানি দূর করে ঘামাচি দূর করে দেবে।

* ঠান্ডার সেঁক : বরফ একটি কাপড়ে পেঁচিয়ে নিন। এবার এটি ঘামাচির স্থানে ৫ থেকে ১০ মিনিট সেঁক দিন। এটি ঘামাচি মেরে ফেলে লাল হওয়া কমিয়ে দিয়ে থাকে। এছাড়া একটি সুতির কাপড় ঠান্ডা পানিতে ভিজিয়ে ঘামাচির স্থানে ৫ থেকে ১০ মিনিট রাখুন। এটি দিনে ৩ থেকে ৪ বার করুন।

* মুলতানি মাটি : পাঁচ টেবিল চামচ মুলতানি মাটির সাথে দুই অথবা তিন টেবিল চামচ গোলাপ জল মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্টটি ঘামাচির স্থানে লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি প্রতিদিন ব্যবহার করুন।

* নিম : এক মুঠো নিম পাতা গুঁড়ো করে পেস্ট তৈরি করে নিন। এই পেস্টটি ঘামাচির স্থানে লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে একবার ব্যবহার করুন। এছাড়া এক মুঠো নিমের পাতা দুই কাপ পানিতে ২০ মিনিট ফুটিয়ে নিন। ঠান্ডা হলে এই পানিতে সুতির কাপড় ভিজিয়ে এটি ঘামাচির স্থানে লাগিয়ে রাখুন। এটি দিনে চার থেকে পাঁচবার করুন।

[ বিঃ দ্রঃ প্রতিদিন মজার মজার রান্নাকরার অসাধারন সব রেসিপি এবং রুপ লাবণ্য টিপস আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে আমাদের পেইজে লাইক দিন!

আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিতে এইখানে ক্লিক করুন

Updated: May 11, 2016 — 4:13 pm
bangladeshi women's lifestyle © 2015-2016, ই-মেইলঃ bdnari.com@gmail.com Serverdokan TEAM