সতর্কতা অবলম্বনে এই সাত যৌন রোগ সম্পর্কে জেনে রাখুন!

bdnari86666549যৌন মিলনের সুখ যেমন মহিলাকে তৃপ্ত করে, তেমনই নতুন উন্মাদনা জাগায় পুরুষ মনে। তবে, এই যৌনক্রিয়া সুখকর শুধু তখনই হবে যদি আপনি সতর্কতা অবলম্বন করে।

যৌনক্রিয়া নিরাপদ না হলে, তার ফল খারাপ , খুব খারাপ হতে পারে। এমনকী মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। নিরাপদ যৌনক্রিয়া না হলে যে শুধু অযাচিত প্রেগন্যান্সি আসতে পারে তা নয়, একাধিক যৌন রোগের শিকার হওয়ার সম্ভাবনাও থেকে যায়।

এই ধরণের যৌন রোগগে বলা হয় সেক্সুয়ালি ট্রান্সমিটেট ডিজিজ বা ঝঞউ। মূলত আপনার সঙ্গীর মুখের লালা, রক্ত, এবং যৌনাঙ্গের তরলে উপস্থিত ব্যাকটেরিয়া বা ভাইরাসের প্রকোপে এই ধরণের রোগের সম্ভাবনা থাকে।

তাই অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কন্ডোমের ব্যবহার, একাধিক সঙ্গীর বদলে নির্দিষ্ট সঙ্গীর সঙ্গে যৌনমিলনে আবদ্ধ হওয়া, নিয়মিত বিরতি মেনে আপনার এবং আপনার সঙ্গীর ঝঞউ পরীক্ষা করানো।

তাহলে আসুন দেখে নেওয়া যাক কোন ৭ ধরণের যৌন রোগ থেকে আমাদের সতর্ক থাকা উচিত এবং এই রোগগুলির উপসর্গ কী।

১. ক্ল্যামিডিয়া : ক্ল্যামিডিয়া হল ব্যাকটেরিয়ার ফলে হওয়া এক ধরণের যৌন রোগ। এই রোগের উপসর্গ হল, পেটের নিচের অংশে অসহ্য যন্ত্রণা হওয়া, প্রস্রাবের সময় যন্ত্রণা হওয়া, যৌনাঙ্গ থেকে ক্রমাগত স্রাব নির্গত হওয়া, যৌনক্রিয়ার সময় যৌনাঙ্গে যন্ত্রণা ইত্যাদি।

২ . গনোরিয়া : গনোরিয়া হল এক ধরনের ব্যাকটেরিয়ার প্রকোপে হওয়া যৌন রোগ। যা যৌনাঙ্গ, মুখ, চোখ, গলা এবং অন্ত্রকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। উপসর্গ বেদনাদায়ক অন্ত্র, যৌনাঙ্গ থেকে রক্ত বের হওয়া, প্রস্রাবের সময় জ্বালা যন্ত্রণা হওয়া, মেয়েদের ক্ষেত্রে পিরিয়ডে সমস্যা ইত্যাদি।

৩. জেনিটাল হারপিস : জেনিটাল হারপিস খুব তাড়াতাড়ি ছড়িয়ে পড়ে। এটি ছোঁয়াচেও বটে। এই রোগের উপসর্গ হল, নিতম্বে লাল লাল ফুসকুড়িতে ভরে যায়। যৌনাঙ্গে একাধিক ফুসকুড়ি দেখা দেয়, যৌনাঙ্গে জ্বালা, চুলকুনি এবং সংক্রমণ হয়।

৪ . জেনিটাল ওয়ার্ট : ভাইরাসের প্রভাবে বিশেষত মহিলাদের ক্ষেত্রে এই যৌনরোগের আধিক্য হয়। তবে পুরষদেরও এই রোগ হতে পারে। মেয়েদের ক্ষেত্রে এই সংক্রমণ ক্রমেই সার্ভিকাল ক্যান্সারে পরিণত হতে পারে। মূলত, যৌনাঙ্গ ফুলে যাওয়া, যৌনাঙ্গে একাধিক আঁচিল জন্মানো, যৌন মিলনের সময় রক্তক্ষরণ, যৌনাঙ্গে অস্বস্তি ইত্যাদি লক্ষণগুলি দেখা যায়।

৫. হেপাটাইটিস : অনেকেই ভাবেন হয়তো হেপাটাইটিস লিভারের রোগ, এটি যৌনরোগ নয়। কিন্তু আসলে এটি ভাইরাস বাহিত একটি যৌন রোগ। এই রোগ সবক্ষেত্রে না হলেও কিছু কিছু ক্ষেত্রে ছোঁয়াচেও বটে। এই রোগের উপসর্গ বলতে প্রচন্ড ক্লান্তি, বমি বমি ভাব, খাওয়ার ইচ্ছে নষ্ট হয়ে যাওয়া, জ্বর, গাঁটের ব্যথা এবং ত্বকের অ্যালার্জি দেখা যায়।

৬ .সাইফিলিস : ব্যাকটেরিয়ার প্রভাবে এই সাইফিলিস নামের যৌন রোগটি হতে পারে। এই রোগের ফলে যৌনাঙ্গ, ত্বক এবং শ্লেষ্মা উৎপাদনকারী গ্রন্থি আক্রান্ত হতে পারে। এর উপসর্গ হল ত্বকে কালশিটে দাগ, অ্যালার্জি , সবসময় ঘুম ঘুম ভাব, লিম্ফ নডের আকার বেড়ে যাওয়া। বাড়াবাড়ি হলে এই রোগের ফলে রোগী অন্ধও হয়ে যেতে পারেন, কিংবা শরীরের আংশিক পক্ষাঘাত হতে পারে।

৭ . এইচআইভি ও এইডস : এইচআইভি/এইডস হল সবচেয়ে ভয়ঙ্কর যৌনরোগ। এই রোগের সেভাবে চিকিৎসা বলতেও কিছু নেই। এই রোগে মৃত্যু হতে পারে। উপসর্গ বলতে ক্লান্তি, কাঁপুনি দিয়ে জ্বর আসা, চূড়ান্তে পেটের সমস্যা, মাথা যন্ত্রণা, সংক্রমণ, রোগ প্রতিহত করার ক্ষমতা ক্রমশ কমতে থাকা প্রভৃতি।

[বিঃ দ্রঃ প্রতিদিন মজার মজার রান্নাকরার অসাধারন সব রেসিপি এবং রুপ লাবণ্য টিপস আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে আমাদের পেইজে লাইক দিন!

আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিতে এইখানে ক্লিক করুন

Updated: June 16, 2016 — 7:47 pm
bangladeshi women's lifestyle © 2015-2016, ই-মেইলঃ bdnari.com@gmail.com Serverdokan TEAM