ছারপোকার কামড়ে জালাপোড়া কিংবা থেকে রক্ষা পাওয়ার ঘরোয়া উপায়!

হাতের কাছেই রয়েছে এই পোকার কামড়ের কারণে চুলকানি থেকে রক্ষা পাওয়ার উপায়। চিকিৎসাবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটের প্রতিবেদনে জানানো হয়, এই পোকা কামড়ালে প্রথমে ‘জীবাণুনাশক সাবান’ ও পানি দিয়ে ধুয়ে তারপর প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করতে হবে।

* কলার খোসা: এতে থাকে ‘ক্যারোটেনয়েডস’, ‘পলিফেনলস’ ইত্যাদি জৈব-সক্রিয় ভেষজ উপাদান। কলার খোসার ভেতরের অংশ কামড়ানো স্থানে ঘষলে জালাপোড়া কিংবা চুলকানির অনভূতি প্রশমিত হবে। পদ্ধতিটি যতবার খুশি অনুসরণ করা যায়।

* দারুচিনি ও মধু: প্রদাহরোধী উপাদান থাকে দারুচিনিতে আর মধু ত্বকে আর্দ্রতা যোগায়। দুটিকে একত্রে মিশিয়ে ছারপোকার কামড়ের চিকিৎসায় কাজে লাগাতে পারেন, কমাতে পারে সংক্রমণের আশঙ্কা। দুতিন টেবিল-চামচ দারুচিনির গুঁড়ার সঙ্গে কয়েক ফোঁটা মধু মিশিয়ে আক্রান্ত স্থানে মাখতে হবে। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। প্রতিদিন তিন থেকে চারবার পেস্টটি প্রয়োগ করতে পারেন।

* টুথপেস্ট: এতে থাকা মেনথল কামড়ানো অংশে ঠা-া অনুভূতি দেয়, যা চুলকানি ও জ¦ালাপোড়া কমায়। কামড়ানো অংশে ১০ মিনিট টুথপেস্ট মাখিয়ে রেখে ধুয়ে ফেলতে হবে। এভাবে প্রতিদিন তিন থেকে চারবার পেস্ট মাখাতে হবে।

* মাউথওয়াশ: এতে থাকে ‘ইথানল’, যার আছে জীবানুনাশক উপাদান এবং অ্যালকোহল। যা সংক্রমণ দূর করতে সহায়ক। তুলার বল বানিয়ে তা মাউথওয়াশে ডুবিয়ে কামড়ানো অংশে প্রয়োগ করতে হবে। দ্রুত উপকার পেতে নিয়মিত পদ্ধতিটি অনুসরণ করার দরকার হবে।

* লবণ: প্রাকৃতিক ব্যাক্টেরিয়ানাশক লবণ ছারপোকার কামড় থেকে হওয়া র‌্যাশ ও প্রদাহ সারাতে সাহায্য করে। কামড়ানোর জায়গায় লবণ ঘষলে ব্যথা ও জ¦ালাপোড়া থেকে দ্রুত উপকার পেতে পারেন। ভালো ফল পেতে দিনে তিনবার লবণ প্রয়োগ করতে হবে।

[ বিঃ দ্রঃ প্রতিদিন মজার মজার রান্নাকরার অসাধারন সব রেসিপি এবং রুপ লাবণ্য টিপস আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে আমাদের পেইজে লাইক দিন!

আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক দিতে এইখানে ক্লিক করুন

Updated: April 17, 2017 — 3:04 pm
bangladeshi women's lifestyle © 2015-2016, ই-মেইলঃ bdnari.com@gmail.com Serverdokan TEAM